1. Hi Guest
    Pls Attention! Kazirhut Accepts Only Bengali (বাংলা) & English Language On this board. If u write something with other language, you will be direct banned!

    আপনার জন্য kazirhut.com এর পক্ষ থেকে বিশেষ উপহার :

    যে কোন সফটওয়্যারের ফুল ভার্সন প্রয়োজন হলে Software Request Center এ রিকোয়েস্ট করুন।

    Discover Your Ebook From Our Online Library E-Books | বাংলা ইবুক (Bengali Ebook)

সকাল-সন্ধ্যায় করণীয় কিছু উপকারী আমল

Discussion in 'Role Of Islam' started by mizansharif, Dec 4, 2012. Replies: 27 | Views: 10997

  1. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    প্রত্যেহ সকাল সন্ধ্যায় তিনবার এই দুআ’ পড়া

    بِسْمِ الله الَّذِى لَا يَضُرُّ مَعَ اسْمِهِ شَيْئٌ فِى الْأَرْضِ وَلَا فِى السَّمَاءِ وَهُوَ السَّمِيْعُ الْعَلِيْمُ

    উচ্চারণঃ- “বিসমিল্লাহিল্লাযি লা ইয়া দ্বুররু মাআ'স মিহি শাইউন ফিল আরদ্বি ওয়া লা ফিস্সামাই ওয়া হুওয়াস্ সামীউল আলীম”।

    অর্থঃ আমি সেই আল্লাহর নামে শুরু করছি, যার নামের সাথে আসমান ও যমীনের কোন বস্তুই অনিষ্ট করতে পারেনা। আর তিনি সব কিছু শুনেন ও জানেন।
    ফায়েদাঃ যে ব্যক্তি সকাল-সন্ধা এই দুআ' পড়বে তাকে কোন জিনিস ক্ষতি করবে না।

    দলীলঃ আবান ইবনু উসমান রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ আমি উসমান ইবনু আফফান রাদিআল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছি যে, রাসূল কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ ‘যদি কোন ব্যক্তি প্রত্যেক দিনের সকালে ও প্রত্যেক রাতের সন্ধ্যায় তিনবার “বিসমিল্লাহিল্লাযী লা ইয়াদুররু --।” পড়ে, তাকে কোন বস্তু ক্ষতি করবে না’। আবান(বর্ণনাকারী) অর্ধাঙ্গাঁবস্থায় ভুগছিলেন। (তিনি যাকে হাদীস বর্ণনা করছিলেন) সে ব্যক্তি তাঁর দিকে তাকাচ্ছিল। তখন আবান বললেনঃ কি দেখছো? আমি তোমাকে যেরূপ বলেছি, হাদীস তো সেরূপই। তবে (আমি যে অর্ধাঙ্গেঁ ভুগছি তার কারণ হ’ল) যেদিন আমি রোগাক্রান্ত হই, সেদিন আমি (ভুলে) দুআ’টি পড়িনি। যেন আল্লাহতাআ'লার তাকদীর পূর্ণ হয়ে যায়।
     
    • Like Like x 1
  2. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় একবার এই দুআ' পড়া

    সকালে এই দুআ' পড়া

    اَلَّلهُمَّ بِكَ أَصْبَحْنَا وَبِكَ أَمْسَيْنَا وَبِكَ نَحْيَا وَبِكَ نَمُوْتُ وَإِلَيْكَ الْمَصِيْرُ

    উচ্চারণঃ- “আল্লাহুম্মা বিকা আছ্বাহনা, ওয়া বিকা আমসায়না, ওয়া বিকা নাহ্য়া, ওয়া বিকা নামুতু ওয়া ইলাইকাল মাছীর।”

    অর্থঃ হে আল্লাহ! তোমারই সাহায্যে আমরা সকাল করি, তোমারই সাহায্যে আমরা সন্ধ্যায় উপনীত হই, তোমারই সাহায্যে আমরা জীবিত থাকি, তোমারই হুকুমে আমরা মৃত্যু বরণ করি, আর তোমার দিকেই হবে আমাদের শেষ পত্যাবর্তন।

    আর সন্ধ্যায় এই দুআ' পড়া

    الَّلهُمَّ بِكَ أَمْسَيْنَا وَبِكَ أَصْبَحْنَا وَبِكَ نَحْيَا وَبِكَ نَمُوْتُ وَإِلَيْكَ النُّشُوْرُ

    উচ্চারণঃ- “আল্লাহুম্মা বিকা আমসায়না, ওয়া বিকা আছ্বাহনা, ওয়া বিকা নাহ্য়া, ওয়া বিকা নামুতু ওয়া ইলাইকান্ নুশুর।”

    অর্থঃ হে আল্লাহ! তোমারই সাহায্যে আমরা সন্ধ্যায় উপনীত হই, তোমারই সাহায্যে আমরা সকাল করি, তোমারই সাহায্যে আমরা জীবিত থাকি, তোমারই হুকুমে আমরা মৃত্যু বরণ করি, আর তোমারই দিকে আমরা (কিয়ামতের দিন) সমবেত হব।

    ফায়েদাঃ এই দুআ’র বিশেষ ফায়েদার উল্লেখ কোথাও দেখা যায়নি। তবে একথা সত্য যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন স্বীয় ছাহাবীগণকে শিক্ষা দিয়েছেন, সুতরাং এটি কখনো বিফলে যাবে না। অন্ততঃ ইত্তেবায়ে রাসূল ও যিকরে ইলাহীর ছওয়াব তো অবশ্যই প্রাপ্ত হবে ইন্শা আল্লাহ।

    দলীলঃ আবু হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ছাহাবীদেরকে শিক্ষা দিয়ে বলতেনঃ যখন ভোর হবে তখন তোমরা বলবে- “আল্লাহুম্মা বিকা আছ্বাহনা, ওয়া বিকা আমসায়না,--।” আর যখন সন্ধ্যা হবে তখন বলবে- “আল্লাহুম্মা বিকা আমসায়না, ওয়া বিকা আছ্বাহনা-।”
     
    • Like Like x 1
  3. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় চার বার করে এই দুআ' পড়া

    اَلَّلهُمَّ إِنّي أصْبَحْتُ أُشْهِدُكَ وَأُشْهِدُ حَمَلَةَ عَرْشِكَ وَمَلَئِكَتِكَ وَجَمِيْعَ خَلْقِكَ أَنَّكَ أَنْتَ اللهُ لاَ إِلَهَ إِلاَّ أَنْتَ وَحدَكَ لاَشَرِيْكَ لَك وأَنَّ مُحَمَّداً عَبْدُكَ وَرَسُولُك.َ

    উচ্চারণঃ- “আল্লাহুম্মা ইন্নি আছবাহতু উশ্হিদুকা ওয়া উশ্হিদু হামালাতা র্আশিকা, ওয়া মালায়িকাতিকা, ওয়া জামীআ' খলক্বিকা, আন্নাকা আন্তাল্লাহু লা ইলাহা ইল্লা আন্তা ওয়াহ্দাকা লা শারীকা লাকা, ওয়া আন্না মুহাম্মাদান আ'ব্দুকা ওয়া রাসূলুকা।”

    অর্থঃ হে আল্লাহ! সকালে উপনীত হয়ে, তোমাকে সাক্ষী করছি, তোমার আ'রশ বহনকারীদের সাক্ষী করছি, তোমার সকল ফেরেশতাকে সাক্ষী করছি এবং তোমার সকল সৃষ্টিকে সাক্ষী করছি। (একথার উপর যে) নিশ্চয় তুমিই আল্লাহ, তুমি ছাড়া ইবাদতের যোগ্য কেউ নেই, তুমি একক তোমার কোন অংশীদার নেই। আর মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তোমার বান্দা এবং রাসূল।

    ফায়েদাঃ যে ব্যক্তি এই দুআ'টি একবার পড়বে তার এক চতুর্থাংশ জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাবে, আর যে দুইবার পড়বে তার অর্ধেক মুক্তি পাবে, আর যে তিনবার পড়বে তার তিন চতুর্থাংশ মুক্তি পাবে, আর যে চার বার পড়বে তার পূর্ণ শরীর জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাবে।

    দলীলঃ আনস ইবনু মালেক রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ যে ব্যক্তি সকাল-সন্ধ্যা একবার ‘আল্লাহুম্মা ইন্নি আছবাহতু উশ্হিদুকা ওয়া উশ্হিদু ----।’ বলবে আল্লাহ তাআ'লা তার এক চতুর্থাংশ জাহান্নাম থেকে মুক্তি দিবেন। যে ব্যক্তি দুইবার বলবে আল্লাহ তাআ'লা তার অর্ধেক জাহান্নাম থেকে মুক্তি দিবেন। যে ব্যক্তি তিন বার পড়বে, আল্লাহ তাআ'লা তার তিন চতুর্থাংশ জাহান্নাম থেকে মুক্তি দিবেন। আর যে চার বার পড়ে, তাকেই সম্পূর্ণ জাহান্নাম থেকে মুক্তি দিবেন’।
     
    • Like Like x 1
  4. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় একশ’বার এই যিকির পাঠ করা

    سُبْحَانَ اللهِ وَبِحَمْدِهِসুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহী’
    অথবা
    سُبْحَانَ اللهِ الْعَظِيْمِ وَبِحَمْدِهِ ‘সুবহানাল্লাহিল আযীম ওয়া বিহামদিহী’।

    ফায়েদাঃ যে ব্যক্তি এই আমল করবে, সে ক্বিয়ামতের দিন শ্রেষ্ঠ আমলকারী হবে, সমুদ্রের ফেনার মত হলেও তার পাপ মোচন করা হবে এবং তার জন্য জান্নাতে একটি খেজুর গাছ লাগানো হবে।

    দলীলঃ আবু হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ ‘যে ব্যক্তি সকাল-সন্ধ্যা একশ’বার ‘সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহী’ বলবে, ক্বিয়ামতের দিন তার চেয়ে শ্রেষ্ঠ আমল নিয়ে অন্য কেউ উপস্থিত হতে পারবে না। কিন্তু যে ব্যক্তি তার মত বলবে বা তার চেয়ে বেশী বলবে তার কথা ভিন্ন।’

    অন্য বর্ণনায় আছেঃ ‘যে ব্যক্তি দৈনিক একশ’বার ‘সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহী’ পড়বে তার পাপসমূহ সমুদ্রের ফেনার মত হলেও ক্ষমা করে দেয়া হবে।’

    জাবির রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ যে ব্যক্তি ‘সুবহানাল্লাহিল আজীম ওয়া বিহামদিহী, বলবে, তার জন্য জান্নাতে একটি খেজুর গাছ লাগানো হবে।
     
    • Like Like x 1
  5. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় একবার এই দুআ' পড়া

    الَّلهُمَّ أَنْتَ رَبّىِ، لاَإلَهَ إِلاَّ أَنْتَ، خَلَقْتَنِي وَاَنَا عَبْدُكَ، وَاَنَا عَلَي عَهْدِكَ وَوَعْدِكَ مَا اسْتَطَعْتُ، أَعُوْذُبِكَ مِنْ شَرِّ مَا صَنَعْتُ، أَبُوْءُ لَكَ بِنِعْمَتِكَ عَلَيَّ، وَأَبُوْءُ بِذَنْبِي فَاغْفِرْلِي َإِنّهُ لاَيَغْفِرُ الذُنُوْبَ إِلاَّ أَنْتَ

    উচ্চারণঃ- ‘আল্লাহুম্মা আন্তা রাব্বী লা-ইলাহা ইল্লা আন্তা, খালাক্বতানী ওয়া আনা আব্দুকা, ওয়া আনা আলা আহ্দিকা ওয়া ওয়া’দিকা মাসতাত্বাতু, আউযু বিকা মিন শাররি মা সানা-তু, আবুউ লাকা বিনি-মাতিকা আ-লাইয়া, ওয়া আবুউ বি যানবী ফাগফিরলী, ইন্নাহু লা ইয়াগ্ফিরুয যুনুবা ইল্লা আন্তা।’

    অর্থঃ হে আল্লাহ! তুমি আমার প্রভূ তুমি ছাড়া ইবাদতের যোগ্য কোন উপাস্য নেই। তুমি আমাকে সৃষ্টি করেছ। আর আমি হচ্ছি তোমার বান্দা। আর আমি সাধ্য মত তোমার ওয়াদার উপর আছি। যা আমি করেছি তার অনিষ্ট থেকে তোমার আশ্রয় প্রার্থনা করছি। আমার উপর তোমার অনুগ্রহের স্বীকার করছি। আর নিজের গুনাহের কথাও স্বীকার করছি। সুতরাং আমাকে ক্ষমা কর, কারণ তুমি ব্যতীত অন্য কেউ গুনাহ ক্ষমা করবেনা।

    ফায়েদাঃ যদি কেউ ইয়াকীন তথা পূর্ণ বিশ্বাসের সহিত সন্ধ্যায় একবার এই দুআ' পড়ে এবং সেই রাতে মারা যায়, তাহ’লে সে জান্নাতে প্রবেশ করবে। আর যদি কেউ সকালে পড়ে এবং সেই দিনে মারা যায়, সেও জান্নাতে যাবে।

    দলীলঃ শাদ্দাদ ইবনু আউস রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ সাইয়িদুল ইস্তিগফার হল - ‘আল্লাহুম্মা আন্তা রাব্বী --।’ যে ব্যক্তি সন্ধ্যায় এই দুআ' পড়বে এবং রাত্রে মারা যাবে, সে জান্নাতে যাবে। আর যে ব্যক্তি সকালে পড়বে এবং দিনে মারা যাবে, সেও জান্নাতে যাবে।
    তিরমিযীতে বর্ণিত আছে, তার জন্য জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে।
     
  6. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় তিনবার করে কুরআন মজীদের শেষ তিন সুরা (সূরা ইখলাস, ফালাক এবং নাস) পড়া।
    অর্থাৎ

    قُلْ هُوَ اللهُ أَحَد (১)
    اللهُ الصَّمَدُ (২)
    لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُوْلَدْ (৩)
    وَلَمْ يَكُنْ لَهُ كُفُوًا أحَد.(৪)

    উচ্চারণঃ- “কুল হুওয়াল্লাহু আহাদ’ আল্লাহুছ ছামাদ, লাম্ ইয়ালিদ ওয়া লাম্ ইউলাদ্, ওয়া লাম্ ইয়াকুল্লাহু কুফুওয়ান্ আহাদ। (সূরা ইখলাছ)

    অর্থঃ (১) বলুন (হে মুহাম্মাদ) তিনি আল্লাহ এক (২) আল্লাহ কারো মুখাপেক্ষী নন। (৩) তিনি কাউকে জন্ম দেননি এবং কারো থেকে জন্ম গ্রহনও করেননি। (৪) এবং তাঁর কোন সমকক্ষও নেই।

    قُلْ أَعُوْذُ بِرَبِّ الْفَلَقِ (১)
    مِنْ شَرِّ مَا خَلَقَ (২)
    وَمِنْ شَرِّ غَاسِقٍ إِذَا وَقَبَ (৩)
    وَمِنْ شَرٍّ النَّفَّاثَاتِ فِي العُقَدِ (৪)
    وَمِنْ شَرِّحَاسِدٍ إِذَا حَسَدَ (৫)

    উচ্চারণঃ- ‘কুল আউযু বিরাব্বিল ফালাক, মিন শাররি মা খালাক, ওয়া মিন শাররি গাসিক্বিন ইযা ওয়াক্বাব, ওয়া মিন শাররিন নাফফাসাতি ফিল উক্বাদ, ওয়া মিন শাররি হাসিদিন ইযা হাসাদ।’ (সুরা ফালাক্ব)

    অর্থঃ (১) ‘বলুন, আমি আশ্রয় গ্রহন করছি প্রভাতের পালনকর্তার, (২) তিনি যা সৃষ্টি করেছেন তার অনিষ্ট থেকে, (৩) অন্ধকার রাত্রির অনিষ্ট থেকে, যখন তা সমাগত হয়, (৪) গ্রন্থিতে ফুঁৎকার দিয়ে জাদুকারিণীদের অনিষ্ট থেকে (৫) এবং হিংসুকের অনিষ্ট থেকে যখন সে হিংসা করে।

    قُلْ أَعُوْذُ بِرَبِّ النَّاسِ (১)
    مَلِكِ النَّاسِ (২)
    إِلَهِ النَّاسِ (৩)
    مِنْ شَرِّ الْوَسْوَاسِ الخَنَّاسِ (৪)
    الَّذِي يُوَسْوِسُ فِي صُدُوْرِ النَّاسِ (৫)
    مِنَ الْجِنَّةِ وَالنَّاسِ (৬)

    উচ্চারণঃ- ‘কুল আউযু বিরাব্বিন্নাস, মালিকিন নাস, ইলাহিন নাস, মিন শাররিল ওয়াসওয়াসিল খান্নাস, আল্লাযী ইউওয়াস্ওয়িসু ফী ছুদূরিন নাস, মিনাল জিন্নাতি ওয়ান্নাস।’ (সূরা নাস)

    অর্থঃ (১) বলুন, আমি আশ্রয় গ্রহন করছি মানুষের পালনকর্তার, (২) মানুষের অধিপতির, (৩) মানুষের মা’বুদের, (৪) আত্মগোপনকারী কুমন্ত্রণা দানকারীর অনিষ্ট থেকে, (৫) যে মানুষের অন্তরে কুমন্ত্রণা দেয়, (৬) সে জ্বিনের মধ্য থেকে হোক কিংবা মানুষের মধ্য থেকে।

    ফায়েদাঃ যে ব্যক্তি এই তিনটি সূরা নিয়মিত সকাল-বিকাল পাঠ করবে, আল্লাহ তাআ'লা তাকে সকল বালা-মুছীবত থেকে দুরে রাখবেন।

    দলীলঃ আব্দুল্লাহ ইবনু খুযাইব রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ আমি এক ঘোর অন্ধকার ও ঝড়-বৃষ্টির রাতে নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে তালাশ করার জন্য বের হলাম যেন ছলাতে আমাদের ইমামত করেন। আমরা তাঁকে পেলাম। তিনি বললেনঃ বল! আমি কিছু বললাম না। তিনি আবার বললেনঃ বল! আমি কিছু বললাম না। তিনি আবার বললেনঃ বল! আমি জিজ্ঞেস করলাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ! কি বলব? তিনি বললেনঃ সকাল-সন্ধ্যায় তিন তিন বার ‘কুল হুওয়াল্লাহু আহাদ’ (সূরা ইখলাস) এবং মুআ'উয়েযাতাইন (সূরা ফালাক্ব ও নাস) পড়বে। তাহলে তোমার জন্য সমূহ বস্তু থেকে যথেষ্ট হবে।
     
    • Like Like x 1
  7. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল সন্ধ্যায় একবার এই তাসবীহ পড়া

    لاَإِلهَ إِلاَّاللهُ وَحْدَهُ لاَشَرِيْكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَي كُلِّ شَيٍّ قَدِيْرٍ

    উচ্চারণঃ- ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহ্দাহু লা শারীকালাহু, লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু ওয়া হুওয়া আ-লা কুল্লি শাইয়িন ক্বাদীর।’

    অর্থঃ আল্লাহ ব্যতীত অন্য কোন (সত্য) মাবুদ নেই। তিনি একক, তাঁর কোন শরীক নেই। রাজত্ব ও প্রশংসা একমাত্র তাঁরই জন্য। তিনি প্রত্যেক জিনিসের উপর শক্তিশালী।
    ফায়েদাঃ যে ব্যক্তি একবার পড়বে, সে ইসমাঈল (আঃ) গোত্রের একটি দাস মুক্ত করার সমান ছওয়াব পাবে। আর দশটি নেকী পাবে, দশটি গুনাহ ক্ষমা হবে, দশটি উচ্চ মর্যাদা লাভ করবে এবং শয়তান থেকে পরিত্রাণ পাবে।

    দলীলঃ আবু আইয়াশ রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ ‘প্রভাত শুভাগমন করার পর যে ব্যক্তি একবার “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু--।” বলবে, সে ইসমাঈল আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বংশধর থেকে একজন দাস মুক্ত করার সমান ছওয়াব পাবে। তার জন্য দশটি নেকী লেখা হবে, দশটি পাপ মোচন করা হবে, দশটি উচ্চ মর্যাদা লাভ করতে পারবে এবং সন্ধ্যা পর্যন্ত শয়তানের কবল থেকে নিরাপদে থাকবে। আর যদি সন্ধ্যায় বলে, তাহলে সকাল পর্যন্ত পূর্বের ন্যায় ফযীলত প্রাপ্ত হবে। হাম্মাদ (বর্ণনাকারী) বললঃ এক ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে সপ্নে দেখল এবং তাঁর কাছে জিজ্ঞেস করল। ইয়া রাসূলাল্লাহ! আবু আইয়াশ আপনার পক্ষ থেকে এরূপ এরূপ হাদীস বর্ণনা করছে এব্যাপারে আপনি কি বলেন? উত্তরে তিনি বললেনঃ আবু আইয়াশ সত্যই বলেছে।’
     
    • Like Like x 1
  8. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায়
    একশ’বার سُبْحَانَ اللهِ ‘সুবহানাল্লাহ’
    একশ’বার الْحَمْدُ لِلَّهِ ‘আলহামদুলিল্লাহ’
    একশ’বার اللهُ أَكْبَر ‘আল্লাহু আকবর’ এবং একবার

    لاَإِلهَ إِلاَّاللهُ وَحْدَهُ لاَشَرِيْكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَي كُلِّ شَيٍّ قَدِيْرٍ

    উচ্চারণঃ- ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহ্দাহু লা শারীকা লাহু, লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আ’লা কুল্লি শাইয়িন ক্বাদীর’ পড়বে।

    অর্থঃ আল্লাহ ব্যতীত অন্য কোন (সত্য) মাবুদ নেই। তিনি একক, তাঁর কোন শরীক নেই। রাজত্ব ও প্রশংসা একমাত্র তাঁরই জন্য। তিনি প্রত্যেক জিনিসের উপর শক্তিশালী।

    ফায়েদাঃ একশ’ বার ‘সুবহানাল্লাহ’ বলা একশ’ উট ছদকা করার চেয়ে উত্তম। একশ’ বার ‘আলহাম্দু লিল্লাহ’ বলা আল্লাহর পথে জিহাদের জন্য প্রস্তুতকৃত একশ’ ঘোড়ার চেয়েও উত্তম। একশ’ বার ‘আল্লাহু আকবর’ বলা একশ’ জন গোলাম আযাদ করার চেয়েও উত্তম। আর ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু--’ বলা ক্বিয়ামতের দিন সর্বশ্রেষ্ঠ আমল নিয়ে উপস্থিত হওয়ার কারণ।

    দলীলঃ আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আছ রাদিআল্লাহু আনহু) বলেনঃ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ ‘যে ব্যক্তি সূর্যোদয়ের ও সূর্যাস্তের পূর্বে একশত বার ‘সুবহানাল্লাহ’ বলবে, তার জন্য তা একশ’ উটের চেয়ে বেশী উত্তম হবে। যে ব্যক্তি সূর্যাস্তের পূর্বে একশ’ বার ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলবে তার জন্য আল্লাহর পথে জিহাদের জন্য প্রস্তুতকৃত একশ’ ঘোড়ার চেয়েও উত্তম হবে। যে ব্যক্তি সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের পূর্বে একশ’ বার ‘আল্লাহু আকবর’ বলবে তার জন্য একশ’ দাস মুক্ত করার চেয়েও উত্তম হবে। আর যে ব্যক্তি সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের পূর্বে একশ’ বার ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু---’ পড়বে কিয়ামতের দিন তার চেয়ে উত্তম আমল নিয়ে কেউ উপস্থিত হতে পারবেনা। কিন্তু যে ব্যক্তি তার মত বা তার চেয়ে বৃদ্ধি করেছে সে ব্যতীত।
     
    • Like Like x 2
  9. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যায় দশবার এই যিকির বলা

    لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللهُ وَحْدَهُ لاَشَرِيْكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ يُحْيِي وَيُمِيْتُ وَهُوَ عَلَي كُلِّ شَيٍّ قَدِيْرٍ.

    উচ্চারণঃ- “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকা লাহু, লাহুল্ মুলকু, ওয়া লাহুল হামদু য়ুহ্য়ী ওয়া য়ুমিতু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন ক্বাদীর”।

    অর্থঃ আল্লাহ ব্যতীত অন্য কোন (সত্য) মাবুদ নেই। তিনি একক, তাঁর কোন শরীক নেই। রাজত্ব ও প্রশংসা একমাত্র তাঁরই জন্য। তিনিই জীবন ও মৃত্যু দান করেন। তিনি প্রত্যেক জিনিসের উপর শক্তিশালী।

    ফায়েদাঃ সকাল-বিকাল এই তাসবীহ পাঠ করলে প্রত্যেকটির বদলে দশটি পূণ্য পাবে, দশটি পাপ মোচন হবে, দশটি উচ্চ মর্যাদা লাভ হবে, দশটি দাস মুক্ত করার সমান ছওয়াব পাবে, দিনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তার জন্য হাতিয়ারে পরিণত হবে। আর সারা দিনের কোন আমল এর চেয়ে প্রভাবশালী হবে না।

    দলীলঃ আবু আইয়ুব আনসারী রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ যে ব্যক্তি সকালে দশবার ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ---’ বলবে- তার জন্য আল্লাহ তাআলা দশটি পূণ্য লেখে দিবেন, দশটি গুনাহ ক্ষমা করবেন, দশটি গোলাম আযাদ করার সমান পূণ্য দার করবেন এবং তাকে শয়তান থেকে মুক্তিদান করবেন। আর যে ব্যক্তি সন্ধ্যায় বলবে তার জন্যও সেরূপ হবে।
    আহমদ এবং ত্বাবরানীতে আছে দিনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তার জন্য হাতিয়ার স্বরূপ হবে এবং সেই দিনের অন্য কোন আমল এর চেয়ে প্রভাবশালী হবে না।
     
    • Like Like x 1
  10. mizansharif
    Offline

    mizansharif Senior Member Member

    Joined:
    Sep 19, 2012
    Messages:
    1,080
    Likes Received:
    334
    Gender:
    Male
    Location:
    পথে প্রান্তরে
    Reputation:
    67
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সকাল-সন্ধ্যা এই এই দুআ' পড়া

    الَّلهُمَّ إِنِّي أَسْئَلُكَ الْعَفْوَ وَالْعَافِيَةَ فِي الدُّنْيَا وَالآَخِرَةِ الَّلهُمَّ إِنِّي أَسْئَلُكَ الْعَفْوَ وَالْعَافِيَةَ فِي دِيْنِي وَدُنْيَايَ وَأَهْلِي وَمَالِي اللَهُمَّ اسْتُرْ عَوْرَاتِي وَآمِنْ رَوْعَاتِي الَّلَهُمَّ احْفَظْنِي مِنْ بَيْنِ يَدَيَّ وَمِنْ خَلْفِي وَعَنْ يَمِيْنِي وَعَنْ شِمَالِي وَمِنْ فَوْقِى وَأَعُوْذُ بِعَظَمَتِكَ أَنْ أُغْتَالَ مِنْ تَحْتِي

    উচ্চারণঃ- ‘আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকাল আফ্ওয়া ওয়াল আ’ফিয়াতা ফিদ্দুনয়া ওয়াল আখিরাহ। আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকাল আ’ফ্ওয়া ওয়াল আ’ফিয়াতা ফী দ্বীনি ওদুনয়ায়া ওয়া আহলী ওয়া মালী আল্লাহুম্মাস্তুর আ’ওররাতী ওয়া আমীন রাওআতী, আল্লাহুম্মাহ্ ফাজনী মিন বাইনা য়াদাইয়া ওয়া মিন খালফী ওয়া আন য়ামীনী ওয়া আন শীমালী ওয়া মিন ফাওক্বী ওয়া আউযু বিআযামাতিকা আন উগতালা মিন তাহ্তী’।

    অর্থঃ হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে দুনিয়া ও আখিরাতে ক্ষমা এবং নিরাপত্ত্বা প্রার্থনা করছি। হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে আমার দ্বীন, আমার দুনিয়া, আমার পরিবার এবং আমার ধন-সম্পদের বেলায় ক্ষমা এবং নিরাপত্ত্বা প্রার্থনা করছি। হে আল্লাহ! আমার দোষ-ত্র“টিসমুহ গোপন রাখ, আমার ভয়-ভীতিসমুহে আমায় নিরাপত্ত্বা দাও, হে আল্লাহ! আমাকে আমার সামনে থেকে, পিছন থেকে, ডান থেকে, বাম থেকে এবং উপর থেকে রক্ষা কর। আর আমি আমার নিচ দিয়ে ধ্বংস হয়ে যাওয়া থেকে তোমার মহত্বের আশ্রয় প্রার্থনা করছি।

    ফায়েদাঃ এই দুআটির বিশেষ ফায়েদার স্পষ্ট কোন বর্ণনা কোথাও পাওয়া যায়নি, কিন্তু নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যেহেতু নিয়মিত পড়েছেন সেহেতু বিফল হবেনা। এছাড়া দুআটির অর্থের দিকে তাকালেই বুঝে আসে এটি কত উপকারী।

    দলীলঃ আব্দুল্লাহ ইবনু উমর রাদিআল্লাহু আনহু বলেনঃ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কোন দিন সকাল-সন্ধ্যা এই দুআ' পড়া বাদ দিতেন না-“আল্লাহুম্মা ---।”
     
    • Like Like x 1

Pls Share This Page:

Users Viewing Thread (Users: 0, Guests: 0)