1. Hi Guest
    Pls Attention! Kazirhut Accepts Only Bengali (বাংলা) & English Language On this board. If u write something with other language, you will be direct banned!

    আপনার জন্য kazirhut.com এর পক্ষ থেকে বিশেষ উপহার :

    যে কোন সফটওয়্যারের ফুল ভার্সন প্রয়োজন হলে Software Request Center এ রিকোয়েস্ট করুন।

    Discover Your Ebook From Our Online Library E-Books | বাংলা ইবুক (Bengali Ebook)

Collected ভাড়াটে রুই (রম্য রচনা) - ইয়াসিন হোসাইন মাসুম

Discussion in 'Collected' started by Zahir, Jul 23, 2019. Replies: 15 | Views: 174

  1. Zahir
    Offline

    Zahir Administrator Admin

    Joined:
    Jul 30, 2012
    Messages:
    19,333
    Likes Received:
    5,823
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka, Bangladesh
    Reputation:
    1,142
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    ৭ম পর্ব
    ------------------

    মাছটি নেট মিস হয়ে দ্রুত দুরে সরে গেল ৷মাহতাব চৌধুরি রক্তাক্ত লাল চোখে তাকালেন সাজুর দিকে ৷ মাহতাব চৌধুরী মাছটিকে টেনে সুতা জড়িয়ে কাছে এনে অনুধাবন করলেন এটি মিরকা মাছ ৷৷ হঠাৎ ৭০ নং সিট থেকে বেশ জোড়েই ঝপাৎ শব্দ এলো লক্ষ করলে কেউ একজন পানিতে লাফ দিয়েছেন তাদের ছিপটি মাছ পানিতে নামিয়ে নিয়ে গেছে বলে , এবার তিনি ভীষন ক্ষেপে গেলেন ৷৷এদিকে তার ছিপে থাকা মিরকা মাছটি তখনো মাচার কাছে খেলতেছে, এই ফাকে সাজু নেট দিয়ে ছো মেরে দিলো ৷৷মাহতাব চৌধুরী লক্ষ করলেন সাজুর নেটের সাথে শুধু কাটা লেগে আছে,মিরকা মাছটি গায়েব ৷
    দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতে চললো শিকারীগন বেশ ভালোই হিট পাচ্ছে ৷কিছু কিছু সিটে বেশ বড় বড় হিট পেয়েছে ৩ নং সিটে ১২.৮৯০ কেজি সাইজের কাতলা পাওয়া গেছে, ১৩ নং সিটে ৮.১৪৫ সাইজের কার্ফু, ১৩৭ নং সিটে পাওয়া গেছে ১৪.৩৬৮ গ্রাম সাইজের ব্লাক কার্প যেটি কিনা রাজদীঘির আজকের সেরা হিট, এখন পর্যন্ত প্রথম পুরস্কার ১০ লাখ টাকার দাবিদার ৷৷
    অনিল সরকারের মামারাও বেশ কিছু মাছ হিট করে নেটে ভরেছেন কিন্তুু সেগুলোর তুলনামুলক ছোট হওয়ায় কোনটিই পুরস্কারের তালিকায় উঠেনি, উল্লেখ্য যে রাজদীঘির আজকের কম্পিটিশনে একমাত্র বোয়াল মাছটি অভিজিৎ মামাই ধরেছেন যেটির ওজন প্রায় ৬ কেজি হবে, তবে বোয়াল মাছ ধরার ক্রেডিটা যতটা না অভিজিৎ মামার, তার চেয়ে বেশী ঐ মাছটিরই, বেচারা মাছটি বোধ কাটা দিয়ে তার লেজ চুলকাতে গিয়েছিলো ৷

    ৬৭ নং সিটে আলিমরা তেমন একটা বড় হিট পায়নি, তবে একটা মাঝারি সাইজের চিতল মাছ হিট হয়েছিলো ৷ কিন্তুু সামনে থেকে নেট করার সময় মাছের মুখে থাকা কাটা নেটে লেগে যাই ফলে সেটি আর নেট করা সম্ভব হয়নি৷

    হাফিজ তার দাদার থেকে শেখা একটি ম্যাজিক টোপ ব্যবহার করতে চাচ্ছে কিন্তুু সে জন্য এক্কেবারে খাঁটি মধুই লাগবে ,কিন্তুু ভেজালের এই যুগে খাঁটি মধু পাওয়া বড়ই মুশকিল ৷ তার বাড়ির পাশের বড় বটগাছের চাকের কথা আলিমকে বলতেই আলিম দৌড় দিলো৷

    জাহিদ সাহেব কে বেশ উৎফুল্ল দেখাচ্ছে, তিনি হাসিমুখে রাজদীঘিতে খেলা দেখতে আসা ভিআইপি গেস্টদের সাথে চা-আড্ডায় ব্যাস্ত ৷৷

    মতি মিয়া দীঘি পাড়ের গাছের ছায়ায় বসে আছেন, আজ সারাদিনই তিনি ছুটেবেড়িয়েছেন প্রতিটি মাচায় তার সন্তানতূল্য "ভারাটে রুই" মাছের সন্ধানে৷ তবে তিনি এখন বেশ শংকিত, তার মনে সন্দেহ "ভাড়াটে রুই" মাছটি আদৌ বিশাল এ রাজদীঘিতেই জলেই আছে তো! নাকি দ্বীতিয় বার জাল টানার সময় জাহিদ সাহেবের নির্দেশে সুকৌশলে মাছটিকে গায়েব করে দেওয়া হয়েছে!!!

    আলিম ফিরে এসেছে তার শরীরে বেশ ধুলো লেগে আছে ৷ আলীম যখন বটগাছের নিচে চাক ভাংগার পরিকল্পনা করতেছিলো ,সে সময় কিছু দুষ্ট ছেলে মৌচাকে ডিল ছুড়ে ফলে কিছুটা চাক ভেঙ্গে মাটিতে পড়ে ছেলেগুলো দৌড়ে পালালেও আলিম পালায়নি, আলিম যখন ভাংঙ্গা চাকটি হাতে নিয়েছিলো অসংখ্য মৌমাছি তাকে ধরে ফেলেছিলো আলিম তখন মাটিতে গড়াগড়ি দিয়েই চাকের ভাঙ্গা অংশটি হাতে নিয়েই দৌড়ে চলে এসেছে ৷
    সাজুকে মারা থাপ্পর ও গলা ধাক্কাটা মাসুদের মনে বেশ দাগ ফেলেছে, সামন্য একটা মাছ নেট করতে গিয়ে ছুটে গেলে কেউ এভাবে থাপ্পর মারবে ! মাসুদের কাছে এটা বেশ আপত্তিকর মনে হচ্ছে ৷৷ সে মনে মনে সিধান্ত নিয়েছে যে একটা বেশ ধারালো চাপাতি নিয়ে মাহতাব চৌধুরির মাচায় উঠবে , চাপাতিটি থাকবে তার পিছনের হাতে ৷এসময় মাসুদ আচমকা ধমক দিবে মাহতাব চৌধুরীকে, ফলে ক্ষিপ্ত মাহতাব চৌধুরী যখন গত সন্ধ্যর মতো মাসুদকে আবারো থাপ্পর মারতে যাবে ঠিক তখনি সে তার গাল সরিয়ে চাপাতি বের করে তার গালের সামনে ধরবে ৷৷ ফলে চাপাতি তে লেগে চৌধুরীর হাত কেটে যাবে, এতে অবশ্য মাসুদের কোন দোষ থাকবে না ৷৷

    হাফিজ আলিমের উপর ক্ষেপে উঠলেন কেননা মৌচাকটিতে সামন্য পরিমান মধু নেই, মৌচাক মৌমাছির লার্ভা দিয়ে ভরা ৷ চাকটি আলিমের দিকেই ছুড়ে মারলো হাফিজ৷
    আলিম হাফিজের ছুড়ে ফেলে দেওয়া মৌচাক থেকে কি লার্ভ বের করলো, লার্ভগুলো বের করে কাটায় গেথে পানিতে ফেললো ৷৷
    ১৪৭ নং সিট থেকে আনা বিশাল মাছটিকে ওজন দেওয়া পড় মাইকে ঘোষনা আসলো "ব্লাক কার্প ওজন ১৭.৭৮০ কেজি, মাছটি বর্তমানে ১ম অবস্থানে আছে ৷"
    বিকেল ৫.৪৫ মিনিট আর মাত্র ১৫ মিনিট বাকি চারিদিকে বেশ উৎকন্ঠা বিরাজ ,উৎসুক জনতার মনে প্রশ্ন কে হচ্ছেন আজ ১ম পুরস্কার ১০ লাখ টাকার বিজয়ী??
     
    • Friendly Friendly x 2
  2. Zahir
    Offline

    Zahir Administrator Admin

    Joined:
    Jul 30, 2012
    Messages:
    19,333
    Likes Received:
    5,823
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka, Bangladesh
    Reputation:
    1,142
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শেষ পর্ব
    ---------

    পানিতে ঝপাৎ শব্দে আলিম লক্ষ করলো তার ছিপটা পানিতে ভেসে খুব দ্রুতই দুরে চলে যাচ্ছে, ঠিক তখনি হাফিজ তার ছিপ টা তুলে আড়াআড়ী ভাবে আলিমের ছিপের দিকে ছুড়ে মারলো ৷ রিলে কিছুটা সুতা পেছিয়ে নিতেই হাফিজ তার ছিপে টান অনুভব করতে লাগলো৷ হাফিজের ছিপের কাটাগুলো আলিমের ছিপে রিংএর সাথে বেশ ভালোভাবেই আটকে গেছে ৷
    আলিমের ছিপটি এখন বিশাল রাজদীঘির মাঝখানে ৷ হাফিজ যতই টান দেয় রিল থেকে ততই সুতা বের হতে থাকে,হাফিজের হাতে থাকা ছিপটি সম্পুর্ন ধনুকের মত বেঁকে গেছে মনে হচ্ছে যেকোন সময় ভেঙ্গে যাবে ৷৷ মাঝদীঘিতে থাকা আলিমের ছিপটিকে ফাতনার মতো মনে হচ্ছে এখন৷

    [​IMG]
    হাফিজ ও প্রানপনে লড়ে যাচ্ছে৷৷ চারিদিকে শতশত কৌতুহলি চোখ হাফিজের দিকে ৷আশেপাশের সিটের শিকারীরাও তাদের মাচায় দাড়িয়ে বিষয়টা লক্ষ করছেন, মাহতাব চৌধুরীর ক্যামেরা ম্যান রানাও বেশ আগ্রহ নিয়ে তা ভিড়িও করে চলছে ৷বেশ উত্তেজনাকর পরিস্থিতি, জনমনে শংশয় ঠিক পারবে তো মাছটা ধরতে?
    এভাবে ৩০-৪০ মিনিট খেলার পর মাছটি হঠাৎ করেই মাচার দিকে দ্রুতই ছুটতে লাগলো হাফিজ তখন খুব দ্রুত রিলে সুতা জাড়াতে লাগলো যেন কোন প্রকার ঢিল পেয়ে মাছটি ছুটে না যায়৷
    আলিমের ছিপটি তখন পানিতে মাচা থেকে মাত্র ৩০-৩৫ ফিট দুরে৷
    মাছটি আচমা থেমে গিয়ে বামে দিকে মোড় নিলে হাফিজ তার ছিপটিকে টেনে দক্ষতা সহিত মোকাবেলা করলো৷
    আলিমের ছিপ এখন মাচার বেশ কাছাকাছি, মাচা থেকে হাটু ভাজ করে পানি থেকে নিজের ছিপটি হাতে নিলো আলিম ৷ আলিমের ছিপের রিংয়ের সাথে আটকে থাকা কাটাগুলো খুলে দিলো মাসুদ ৷এখন বাকা ছিপ হাতে ধরে মাচায় দাড়িয়ে আলিম ৷ চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সবাই একদৃষ্টিতে তাকিয়ে,মতি মিয়াও বিষয় টা লক্ষ করছেন, হঠাৎ মতি মিয়া চোখ দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়লো, রাজদীঘিতে উপস্থিত শত শত জনতা স্বাক্ষী হলেন অদ্ভুত এক দৃশ্যের, মতি মিয়ার ভাড়াটে রুই মাছটি তার সুবিশাল দেহটি নিয়ে সুম্পর্ন রুপে লাফ দিয়ে আছড়ে পড়লো রাজদীঘির সুবিশাল জলরাশির উপর, রুই মাছটির মুখে তখনও আলিমের ছিপের কাটা লেগে ৷ ডুকরে কেঁদে উঠে দীঘিপাড় ত্যাগ করলেন মতি মিয়া ৷
    পরিশেষে ঘন্টাখানেক যুদ্ধ শেষে ক্লান্ত মাছটি সম্পুর্ন রুপে ভেসে উঠলো রাজদীঘির স্বচ্ছ জলরাশিতে, সাময়িক থমকে গেলো কৌতুহলি মানুষগুলো, হাজারো জনতা মুগ্ধ নয়নে অবলোকন করলো ভাড়াটে রুই মাছটির অপরুপ সৌন্দর্য ও রুপ লাবন্য ৷
    মাহতাব চৌধুরি তখন তার সুবিশাল ক্যাচিং নেট টা নিয়ে মাচায় উঠে "ভাড়াটে রুই " এর দিকে এগিয়ে দিলেন নেটটা ৷ অবশেষে ধরাপড়লো রাজদীঘিতে থাকা সুবিশাল দৈত্য"ভাড়াটে রুই" ৷
    চারিদিকে তখন হইচই পড়ে গেল,সবাই বেশ আনন্দিত আলিম,হাফিজ ও মাসুদ তখন আনন্দে পরস্পর পরস্পরকে জড়িয়ে ধরলো সফলতার অশ্রু গড়িয়ে পড়লো গাল বেয়ে ৷তাদের বহুবছরের স্বপ্ন পুরন হলো ৷
    তড়িঘড়ি করে মাছটা যখন মঞ্চের দিকে নিয়ে যাওয়া হলো তখন সন্ধ্যা ৭.১৭ মিনিট ৷ঠিক বিপত্তিটা বাধলো তখনই , রাজদীঘি কমিটির সভাপতি হাফিজ সাহেব জানিয়ে দিলেন মাছটি নিয়মঅনুয়ায়ী আর কোন ভাবেই পুরস্কারের আওতায় থাকছে না ৷৷
    এমন সিধান্তে রাজদীঘির জনসাধরন ভীষন উত্তেজিত হয়ে গেলো তারা চাইলো যেহেতু আলিম রাজদীঘির সবচেয়ে বড় মাছটি শিকার করেছেন সুতারাং প্রথম পুরস্কার ১০ লাখ টাকা তাদেরই পাওয়া উচিত ৷৷কিন্তুু জাহিদ সাহেবের ভাষ্যমতে রাজদীঘি কমিটির নিয়মনুযায়ী ৬.০০ টার পূর্বে হিট হওয়া মাছকে পুরস্কারের আওতায় আনতে হলে মাছটিকে অবশ্যই পানি থেকে সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিটের পূরবেই তুলে ঘোষনা মঞ্চে আনতে হবে ৷৷
    So rule is rule.

    পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে হাফিজ সাহেবের নির্দেশে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা লাঠি ও বাঁশি হাতে নেমে সাধরন জনগনকে রাজদীঘি ত্যাগ করতে বাধ্য করলো৷
    সুতরাং রাজদীঘির কম্পিটিশনের পুরস্কারের দশ লক্ষ টাকা আলীম, হাফিজ ও মাসুদের ভাগ্যে জুটলো না ৷
    তারপরেও তারা বেশ বেশ খুশি, কেননা আজকের কম্পিটিশনে তারাই সবচেয়ে বড় মাছটি ধরতে পেরেছে ৷

    আলীম, হাফিজ ও মাসুদ তাদের সবকিছু গুছিয়ে পানি থেকে মাছ তুলে বাড়ির উদ্দেশ্য রওনা দিবে এমন সময়
    মাহতাব চৌধুরী তাদের সামনে ১লক্ষ টাকার এক বান্ডেল নোট এগিয়ে দিয়ে বললো " রুই মাছটি আমাকে দিয়ে দাও? "
    তখন মাসুদ বললো "স্যার,প্রতিটি শিকারীরই স্বপ্ন থাকে ,একটি বড় মাছ শিকার করার ,যেটা আজ সৃষ্টি কর্তার কৃপায় পুরন হয়েছে আমাদের ৷ এই মাছটি আমাদের স্বপ্ন, আর জানেন তো ,স্বপ্ন বেঁচতে নেই ৷"
    -
    ------সমাপ্ত-----​
     
    • Friendly Friendly x 2
  3. Zahir
    Offline

    Zahir Administrator Admin

    Joined:
    Jul 30, 2012
    Messages:
    19,333
    Likes Received:
    5,823
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka, Bangladesh
    Reputation:
    1,142
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    নিজের সৃষ্টি হলে আপনার উপাধিগুলো নত শিরে ধারন করতাম।
     
    • Like Like x 1
  4. mukul
    Offline

    mukul Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Aug 5, 2012
    Messages:
    12,198
    Likes Received:
    3,462
    Gender:
    Male
    Location:
    বন পাথারে
    Reputation:
    1,439
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শেষ কয়েক লাইন অনবদ্য... দারুণ মুগ্ধতা!
     
    • Like Like x 1
  5. sotobhai
    Offline

    sotobhai Junior Member Member

    Joined:
    Nov 10, 2012
    Messages:
    155
    Likes Received:
    47
    Gender:
    Male
    Reputation:
    31
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শুরু থেকে লেগে ছিলাম, আর বারবার তাগাদা অনুভব করছিলাম কখন আবার পোস্ট দিবেন আর আমি আবার পড়তে পারব। অসাধারন মামা।
     
    • Friendly Friendly x 1
  6. abdullah
    Offline

    abdullah Welknown Member Member

    Joined:
    Jul 30, 2012
    Messages:
    6,048
    Likes Received:
    1,583
    Reputation:
    967
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    আমার আবার ওয়েটিং লিখা পড়তে ভাল লাগে না। যা দিবেন একেবারে।
    পুরো গল্পটা শেয়ার করার পর এক নিশ্বাসে পড়ে নিলাম।
    মাছ ধরার মাঝে কত কুটকৌশল থাকে লিখাটি না পড়লে হয়ত জানাই হত না।
    মানুষের আকাঙ্ক্ষার ব্যাপ্তি কত দূর পর্যন্ত যেতে পারে... সেটাও গল্পটির বিভিন্ন চরিত্রের মধ্যে ফুঁটে উঠেছে।
    আলীম, হাফিজ ও মাসুদ ইতো বাংলাদেশ।
    ওদের হাসি কান্নার মধ্যে ভেসে আছে বাংলাদেশ।
     

Pls Share This Page:

Users Viewing Thread (Users: 0, Guests: 0)